বর্তমান বছরে সরকারিভাবে রোগী প্রতি ব্যয় ৭৬ হাজার ৩৭৩ টাকা

Home Page » জাতীয় » বর্তমান বছরে সরকারিভাবে রোগী প্রতি ব্যয় ৭৬ হাজার ৩৭৩ টাকা
মঙ্গলবার, ১২ জুন ২০১৮



ছবি সংগৃহীত  বঙ্গ-নিউজ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বর্তমান বছরে চিকিৎসা বাবদ সরকারিভাবে রোগী প্রতি ব্যয় হয় ৭৬ হাজার ৩৭৩ টাকা। পথ্য বাবদ (খাবার) রোগী প্রতি দৈনিক ব্যয় হয় ১২৫ টাকা।

মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান জনবান্ধব সরকার প্রায় প্রতি বছরই মাথাপিছু চিকিসা ব্যয় বরাদ্দ বাড়িয়েছেন। মঙ্গলবার (১২ জুন) জাতীয় সংসদে মো. মামুনুর রশীদ কিরণের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

দিদারুল আলম চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) সর্বশেষ তথ্যনুযায়ী এমবিবিএস রেজিষ্টার্ড চিকিৎসকের সংখ্যা ৮৭ হাজার ৩২১ জন এবং বিডিএস রেজিষ্টার্ড চিকিৎসকের সংখ্যা ৮ হাজার ৫১৫ জন। এসব চিকিৎসকের মধ্যে সারাদেশে বিশেষজ্ঞদের সংখ্যা ২৮ হাজার ৭৪১ জন। এছাড়া বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনসহ অন্যান্য অনুমোদিত মেডিকেল কলেজে প্রতি বছর ২ হাজার ৮৪৬ জন বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ কোর্সে চিকিৎসক ভর্তি হচ্ছে। এছাড়া নতুন ভাবে ডেপুটেশন কমিটি যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে মন্ত্রণালয় কর্তৃক বিশেষ টাস্কর্ফোস গঠন করা হয়েছে।’

এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে গরীব-দুঃস্থ মানুষের চিকিৎসা সেবা সুবিধা বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। তবে দেশের প্রতিটি বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারগুলোতে যাতে গরীব-দু:স্থ রোগীরা বিনামূল্যে-নূন্যতম মূল্যে চিকিৎসা সেবা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সুযোগ পেতে পারে সে লক্ষ্যে বর্তমান সরকার নীতিমালা প্রণয়ন করার কার্যক্রম গ্রহণ করেছে।’

‘দেশে জটিল রোগগুলোর ঔষধের মূল্য বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে’ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর এমন দাবির জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘এটা সঠিক নয়। কিছু কিছু ঔষধের মূল্য আগের তুলনায় সামান্য বৃদ্ধি পেলেও কিছু কিছু আগের তুলনায় হ্রাস পেয়েছে। তাছাড়া মূল্য নিয়ন্ত্রণে সরকারের ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর সর্বদা তৎপর রয়েছে। ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর কেবলমাত্র প্রাইমারি স্বাস্থ্য সেবার তালিকাভুক্ত ১১৭টি জেনেরিক নামের ঔষধের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য নির্ধারণ ও নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।’

শেখ মো. নুরুল হকের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমানে সারাদেশে মোট সাড়ে ১৩ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক চালু আছে। এসকল ক্লিনিকে প্রতিটিতে একজন করে কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) কর্মরত আছে। এসব ক্লিনিক থেকে দৈনিক গড়ে ৩৮ জন রোগী সেবা নিচ্ছেন। ২০০৯ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ৭৪ কোটির অধিক ভিজিটের মাধ্যমে গ্রামীণ জনগণ কমিউনিটি ক্লিনিক হতে সেবা গ্রহণ করছেন।’

বাংলাদেশ সময়: ২০:২৮:৫৫   ১৩৪ বার পঠিত   #  #  #  #  #  #




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

জাতীয়’র আরও খবর


ধনী বৃদ্ধির হারে বাংলাদেশ বিশ্বে তৃতীয়
খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেসের বগি লাইচ্যুত, রেল যোগাযোগ বন্ধ
স্বাধীনতাস্তম্ভ নির্মাণ প্রকল্পের কাজ করার লক্ষ্যে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ শিশুপার্ক
শেখ হাসিনাকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন
আপনিও খণ্ডকালীন কাজ করতে পারেন একুশে বইমেলায়
সংসদে বিরোধী দল কে হবে সে সিদ্ধান্তও নিতে হচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের
সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের শূন্য আসনে ভোটের বিষয়ে করণীয় খুঁজছে নির্বাচন কমিশন
ফের ভারত থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে এল ৩০০ রোহিঙ্গা পরিবারের ১৩০০ জন
সিলেটের দারুণ জয়
জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে টিআইবির অভিযোগ অলীক রহস্যময় কাহিনি : ওবায়দুল কাদের

আর্কাইভ