‘কিছু বিষয়ে চাপ সৃষ্টি করে সমস্যা তৈরি করছিল বিকল্পধারা’: মির্জা ফখরুল

Home Page » জাতীয় » ‘কিছু বিষয়ে চাপ সৃষ্টি করে সমস্যা তৈরি করছিল বিকল্পধারা’: মির্জা ফখরুল
সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮



ফাইল ছবি

বঙ্গ-নিউজ: এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর দল বিকল্পধারাকে বাইরে রেখে ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন এই জোটে বিকল্পধারাকে বাদ দেওয়া হয়েছে, নাকি তারা নিজের থেকেই আসেনি সে বিষয়ে কথা বলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার (১৪ অক্টোবর) বিবিসি বাংলাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মির্জা ফখরুল বলেন, জোট গড়ার বৈঠকগুলোতে ‘কিছু বিষয়ে চাপ সৃষ্টি করে সমস্যা তৈরি করছিল’ বিকল্পধারা। তবে এখানে কোনো ষড়যন্ত্র নেই, নিজেদের সিদ্ধান্তেই তারা জোটে আসেনি।

বিএনপি, গণফোরাম, নাগরিক ঐক্য ও জেএসডি’কে নিয়ে গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গতকালই ৭টি দাবি ও ১১টি লক্ষ্য ঘোষণা করেছে। এসব বিষয়টি সামনে রেখে এই জোটের নেতারা আগামীতে নানা কর্মসূচি দেওয়ারও কথা জানান।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর বিকল্পধারার নেতারা সংবাদ সম্মেলনে দাবি করে, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সংশ্লিষ্টতা নিয়ে তারা নানা রকম শর্ত দিচ্ছিলেন বলেই ষড়যন্ত্র করে তাদের বাইরে রাখা হয়েছে। তবে এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, এটা একেবারেই অমূলক।

ফখরুল বলেন, ‘এর পেছনে কোনো যুক্তি বা সত্যতা নেই। তারাই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে তারা আসবেন না। আগের দিনও তাদের সাথে কথা হয়েছে, তাদের দাবি বা বক্তব্য আমাদের লক্ষ্যগুলোর মধ্যে চলে এসেছে। তারা সবাই একমত ছিলেন। সেখানে কেন তারা নতুন ষড়যন্ত্র দেখতে পাচ্ছেন আমি জানি না।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা প্রথম থেকেই লক্ষ্য করেছিলাম যে কতগুলো বিষয়ে অযথা চাপ তৈরি করে একটা সমস্যা তৈরি করা হয়েছে। যাই হোক, আমরা এ বিষয়ে বেশি কথা বলতে চাই না। আমরা আশা করি, তারা ঐক্যে ফিরে আসবেন।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা আসলে আমরা আরও বেশি উপকৃত হতাম, আমাদের ঐক্য এবং গণতন্ত্রের আন্দোলন আরও জোরদার হতো। আমরা আশা করি যে তারা এ লক্ষ্যের সাথে জড়িত হবেন।’

গতকাল দুপুর থেকে রাজধানীর মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে দফায় দফায় বৈঠকে ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ এর রূপরেখা চূড়ান্ত হয়। সেখানে ৭ দফা দাবি ও ১১ দফা লক্ষ্য স্থির হয়। সেগুলো সংবাদ সম্মেলনে পড়ে শোনান মাহমুদুর রহমান মান্না।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে বি. চৌধুরীকে যে রাখা হচ্ছে না সেটা স্পষ্ট হয়েছিল আগেই। গতকাল সাড়ে ৩টার দিকে ড. কামাল হোসেনের আমন্ত্রণে তার বাসায় গিয়েছিলেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও তার ছেলে মাহি বি. চৌধুরী। ড. কামাল হোসেন তখন বাসায় ছিলেন না। দুপুর থেকেই তিনি নিজের চেম্বারে দফায় দফায় বৈঠক করছিলেন বিএনপি, নাগরিক ঐক্য ও জেএসডি’র নেতাদের সঙ্গে।

বাংলাদেশ সময়: ৮:১৪:৩৮   ৮৮ বার পঠিত   #  #  #  #  #  #




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

জাতীয়’র আরও খবর


প্রধানমন্ত্রীকে (ডাকসুর) আজীবন সদস্য করার প্রস্তাবে নুরুলের দ্বিমত
ভারতে আবার জঙ্গি হামলা হলে পাকিস্তানের পক্ষে পরিস্থিতি অত্যন্ত জটিল হবে -ডোনাল্ড ট্রাম্প
৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারে বসানো হয়েছে পদ্মা সেতুর নবম স্প্যান
ডায়েরির রিপোর্টের ভিত্তিতে মূল্যায়ন , প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা তুলে দেওয়ার নির্দেশ
পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তে আজ যুক্ত হতে যাচ্ছে আরও এ‌কটি স্প্যান,এটি হবে নবম
স্পিকারের সাথে সাক্ষাৎ, রিভা গাঙ্গুলী বাংলাদেশকে বন্ধুপ্রতীম দেশ হিসেবে অভিহিত করেছেন
বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় ভোগান্তিতে সাধারণ যাত্রীগন
মিথ্যার উপর জন্ম নেওয়া কোন দল কখনও পৃথিবীতে টিকতে পারে না,নেতার নাম নিতে লজ্জা হয়,-তোফায়েল
বাস চাপায় ছাত্র মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষোভে উত্তাল রাজপথ
আবরার নিহতের ঘটনায় মামলা হয়েছে গুলশান থানায়

আর্কাইভ