ফরিদপুরে আওয়ামীলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন

Home Page » প্রথমপাতা » ফরিদপুরে আওয়ামীলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন
শুক্রবার, ২ অক্টোবর ২০২০



মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন

জিল্লুর রহমান রাসেল, ফরিদপুর প্রতিনিধিঃ-

ফরিদপুর সদর উপজেলার কানাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি জুলফিকার আলী মিনুর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মুলক মামলা প্রত্যাহার, দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও অবিলম্বে মিনুকে নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন করেছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগসহ সহযোগী সংগঠন ও এলাকাবাসী।
আজ ০২ অক্টোবর শুক্রবার সকাল ১০.৩০ টায় কানাইপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মহাসড়কে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। কোতোয়ালি আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খোকন মাতুব্বরের সভাপতিত্বে এই মানববন্ধন কর্মসূচিতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন আওয়ামীলীগ নেতা কাজী মমিতুল হাসান বিভুল, জেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ প্রদীপ কুমার দাস লক্ষণ, সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের সাবেক ভিপি তাওফীক হোসেন পুচ্চি, কানাইপুর ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক জাহিদুর রহমান, কানাইপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও জুলফিকার আলী মিনুর ছোট ভাই শাহ্ মোঃ শাহজাহান মোল্লা, কন্যা সুমাইয়া, মামলার বাদী পরিমলের ছোট ভাই রমেশ দাস, প্রতিবেশী সন্তোষ দাস, এ্যাডঃ অমোল দাস প্রমুখ।
জুলফিকার আলী মিনুর কন্যা সুমাইয়া বলেন, আমার বাবা একজন সৎ ও আদর্শবান মানুষ, এটা ইউনিয়নের সকলেই জানেন। কিন্তু কি কারণে, কারা এই ষড়যন্ত্র করছে তা আমরা বুঝতে পারছি না। আমি জোড় দাবী জানাচ্ছি সঠিক তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি দেওয়া হোক এবং আমার বাবার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলা তুলে নিয়ে অবিলম্বে তাকে মুক্তি দেওয়া হোক।
মানববন্ধনে উপস্থিত নেতাকর্মীরা বলেন, জুলফিকার আলী মিনু অত্যন্ত ভদ্র ও সৎ একজন মানুষ। তার দ্বারা মানুষের উপকার ছাড়া ক্ষতি হয়নি কখনো। তার সততা, উদারতা, মানুষের প্রতি ভালবাসা দেখে এক শ্রেণীর কূচক্রীমহল ঈর্ষান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে হয়রানি করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ কর্মসূচিতে আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার কয়েক হাজার মানুষ অংশ নেয়।
মানববন্ধনে বক্তারা অবিলম্বে প্রতিহিংসা মূলক এ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। বক্তরা বলেন, যেই পরিমল এই মামলা করেছে তার সাথে মিনু ভাই এর কোন প্রকার দ্বন্দ্ব নেই। বরং তাদের তাদের যাতে কোন প্রকার ক্ষতি না সে বিষয়ে সর্বদা খেয়াল রেখেছেন ও সহযোগীতা করছেন। মিনু ভাই রাজনৈতিক প্রতিহিংসার স্বীকার, কানাইপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের একটি অংশ ষড়যন্ত্র করে এ মামলায় তাকে জড়িয়েছেন। পরিমল দাস যে মামলা করেছে তা সম্পুর্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তার বাড়িতে কোন ভাংচুরও হয়নি এবং মন্দিরেরও কোন ক্ষতি হয়নি।
বক্তব্যে পরিমল দাসের ছোট ভাই রমেশ দাস ও প্রতিবেশী সন্তোস দাস জানান, কি কারণে এই মামলা করা হয়েছে তা আমরা জানিনা। তবে যে অভিযোগে মামলা হয়েছে তা সঠিক না। আমরা মিনু ভাই এর নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করছি।
উল্লেখ্য, গত ৩০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় কানাইপুর বাজারে মিনুর নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। পরিমল দাসের বাড়ি, মন্দির ভাংচুর ও মারধরের ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় বলে জানা যায়। বর্তমানে তিনি জেল হাজতে রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯:৩২:৩০   ২৪৮ বার পঠিত   #  #  #




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

প্রথমপাতা’র আরও খবর


পদ্মা সেতু: যানবাহনের টোল চূড়ান্ত করা হলো
পিকে হালদারের কোন দেশে কত টাকা, হাইকোর্ট জানতে চায়
সিলেট শহরে প্রবল পানি
নেপাল-ভারতের বিভিন্ন বিষয়ে ছয়টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর
পুতিনকে উৎখাতের জন্য রাশিয়ায় একটি অভ্যুত্থান: ইউক্রেন
ভারত জানালে পিকে হালদারের বিষয়ে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
আফগান মেয়েদের পড়াতে ইরানে প্রেরন !
‘বুদ্ধ পূর্ণিমা’ আজ
নিউইয়র্কে বাফেলো শহরে বন্দুকধারীর গুলিতে ১০ জন নিহত
টাইটানিক রহস্য

আর্কাইভ

16. HOMEPAGE - Archive Bottom Advertisement