বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

স্বামীজীর শিকাগো গমন - দুর্গম ও নাটকীয় এক অভিযাত্রা: শেষ পর্ব- স্বপন কুমার চক্রবর্তী

Home Page » মুক্তমত » স্বামীজীর শিকাগো গমন - দুর্গম ও নাটকীয় এক অভিযাত্রা: শেষ পর্ব- স্বপন কুমার চক্রবর্তী
বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২



স্বপন কুমার চক্রবর্তী
এ কথা সত্যি যে, ধর্ম মহাসভার সেই জাঁকজমক দেখে স্বামীজী কিন্তু প্রাথমিক ভাবে মনে মনে কিছুটা দুর্বলতা অনুভব করে ছিলেন। সেদিন সকালের অধিবেশনে তিনি কোন বক্তৃতা করলেন না। কিন্তু দ্বিতীয় অধিবেশনে ঠিক চার জনের বক্তৃতার পরেই স্বামীজী তাঁর বক্তৃতা দিতে উঠে দাঁড়ালেন। আপনারা সকলেই জানেন যে, তিনি তাঁর বক্তব্যের শুরুতেই সেই অসাধারণ সম্বোধনে যেখানে তিনি বলে ছিলেন “ Sisters & Brothers of America”. সেই অতুলনীয় সম্বোধনে প্রথমেই তিনি জয় করে নিয়ে ছিলেন আমেরিকাবাসী মানুষদের হৃদয়কে।
প্রশ্ন হলো স্বামীজীর অসাধারণ বক্তব্যে কি ছিল যা আজও আমাদেরকে জারিত করে রাখে ? আমাদের চিন্তা ভাবনাকে আজও প্রভাবিত করে। এই প্রশ্নের উত্তর কিন্তু এক কথায় দেওয়া সম্ভব নয়। এখানে শুধু ন্যুনতম একটি দিক নির্দেশের সন্ধ্যান দেওয়া যায়। আপনারা সকলেই জানেন যে, শিকাগো ধর্ম মহাসম্মেলনের আয়োজকরা যাদের অন্যতম উদ্দেশ্যই ছিল জগৎ জুড়ে খ্রীষ্টধর্মের শ্রেষ্ঠত্ব জাহির করা। পাশাপাশি ধর্ম মহাসম্মেলনে উপস্থিত অন্যান্য ধর্মের
প্রতিনিধিরাও মনে প্রাণে চাইছিলেন তাদের নিজেদের ধর্মের শ্রেষ্ঠত্ব জাহির করতে। কিন্তু একমাত্র স্বামী বিবেকানন্দ সেই আন্তর্জাতিক মঞ্চে সুস্পষ্ট ভাষায় বলে ছিলেন যে, তাহার ধর্ম অন্য ধর্মের শ্রেষ্ঠত্ব স্বীকার করে। তিনি বলেছিলেন- আমি সেই ধর্মের অন্তর্ভুক্ত বলে গৌরব বোধ করি, যে ধর্ম জগৎকে শিখিয়েছে পরমত সহিষ্ণুতা ও সর্বজনীন সহিষ্ণুতার আদর্শ। আমরা শুধু সব ধর্মকে সহ্যই করি না, সব ধর্মকেই আমরা সত্য বলে বিশ্বাস করি।
এই অন্য ধর্মের শ্রেষ্ঠত্ব স্বীকার করার মাধ্যমে স্বামীজী কিন্তু আসলে ভারতীয় ধর্ম-সংস্কৃতির শ্রেষ্ঠত্বের জয়গান গেয়ে ছিলেন- যা এক কথায় অভুতপূর্ব , অভিনব এবং অনন্য সাধারণ। যে ধর্মের পবিত্র সংস্কৃত ভাষায় ইংরেজি “ এক্সক্লুশন “ শব্দটি অনুবাদ করা যায় না , আমি সেই ধর্মের অন্তর্ভুক্ত বলে গর্ব বোধ করি। আমি সেই জাতির অন্তর্ভুক্ত বলে গর্ব বোধ করি, যে জাতি পৃথিবীর সব ধর্মের ও সব জাতির নিপীড়িত শরনার্থী ।
স্বামীজীর সেই অসাধারণ বক্তব্যের পর ”দি নিউ হেরাল্ড” পত্রিকা স্বীকার করতে বাধ্য হয়ে ছিল যে- “ নিঃসন্দেহে তিনি ( স্বামীজী) ধর্ম মহাসভার শ্রেষ্ঠ ব্যক্তিত্ব। তাঁর ভাষণ শুনার পর আমরা অনুভব করছি, এই প্রাজ্ঞ দেশে ধর্ম প্রচারক পাঠানো কতটা মূর্খতা “- ।
শিকাগো বক্তৃতার মাধ্যমে স্বামীজী বাস্তবিকই ভারত বর্ষকে জগৎ সভার শ্রেষ্ঠ আসনে প্রতিষ্ঠিত করে ছিলেন। আজ ১১ই সেপ্টেম্বর, স্বামী বিবেকানন্দের সেই শিকাগো বক্তৃতার ১২৯ তম বর্ষপূর্তি। সেই অনুষ্ঠান উপলক্ষে স্বামী বিবেকানন্দের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে শিকাগো বক্তৃতার নেপথ্যের কাহিনী শেষ করছি।
তথ্যঋণঃ-
১) স্বামী বিবেকানন্দের শিকাগো বক্তৃতামালা এবং পূর্বের ও পরের ঘটনাবলী। প্রণীত- স্কুল শিক্ষাদপ্তর পশ্চিম বঙ্গ সরকার।
২) বিবেকানন্দ চরিত- প্রণীত – শ্রী সত্যেন্দ্র নাথ মজুমদার।
৩) অদ্বিতীয় বিবেকানন্দ: প্রণীত- পৃথ্বীরাজ সেন।
৪) স্বামী বিবেকানন্দের জীবন ও কথামৃত: প্রণীত- উজ্জ্বল কুমার দাস।
৫ ) আনন্দ বাজার পত্রিকা।
৬ ) এবেলা পত্রিকা।
৭) দি গল্পসল্প।

বাংলাদেশ সময়: ২০:১৩:০৮   ১৯৪ বার পঠিত   #  #  #  #