ক্রিকেট দেবে বাংলাদেশ আর্জেন্টিনাকে, ফুটবল-হকি নেবে

Home Page » ক্রিকেট » ক্রিকেট দেবে বাংলাদেশ আর্জেন্টিনাকে, ফুটবল-হকি নেবে
শুক্রবার ● ১৯ এপ্রিল ২০২৪


 যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী পাপনের সঙ্গে আর্জেন্টিনার রাষ্ট্রদূত মার্সেলো সি সেসা।

 বঙ্গনিউজঃ   ফুটবলের আর্জেন্টিনাকে নিয়ে বাংলাদেশিদের আবেগ ও ভালোবাসার কথা সবার জানা। কাতার বিশ্বকাপে লিওনেল মেসিদের জন্য যে উন্মাদনা দেখিয়েছিলেন ভক্তরা, তার ছবি দেখে অভিভূত হয়েছিলেন আর্জেন্টাইনরা। আর্জেন্টিনার ফুটবলের প্রতি ভালোবাসা দেখে বাংলাদেশ জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াকে সে দেশের ক্লাব সোল দ্য মায়ো নিয়ে গিয়েছিল।

কাতার বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা জানে ক্রিকেটে বাংলাদেশের অগ্রগতির কথাও। তাই তো দুটি ভিন্ন স্পোর্টসের সহযোগিতার জন্য আদান-প্রদানের চিন্তাও করছে দেশ দুটি। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে বাংলাদেশ থেকে ক্রিকেটের সহযোগিতা চেয়েছেন আর্জেন্টিনার রাষ্ট্রদূত মার্সেলো সি সেসা, ‘সমঝোতা স্বাক্ষরের পর এটিই প্রথম আনুষ্ঠানিক সভা। অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছি। অবশ্যই ফুটবল সেখানে প্রাধান্য পেয়েছে। এ ছাড়া আমরা ক্রিকেট ও হকিতে এগোতে চাই, সেটাও জানিয়েছি।’

যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপন বিসিবি সভাপতিও। তিনি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেওয়ার এক বছর আগেই আর্জেন্টিনার সঙ্গে একটি সমঝোতা স্বাক্ষর হয়েছিল। কিন্তু দুই দেশের নির্বাচনের কারণে গত ১২ মাসে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ চোখে পড়েনি। ক্রীড়ার মাধ্যমে দুটি দেশেরই চাওয়া আরও কাছাকাছি আসা। ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলেছিল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা।

ফুটবলে জনপ্রিয় দেশটির কাবাডি দলও বাংলাদেশে এসেছিল একটি টুর্নামেন্ট খেলতে। তাই তো ক্রিকেটের সঙ্গে বাংলাদেশের কাছে কাবাডির সহযোগিতাও চেয়েছেন দেশটির রাষ্ট্রদূত। এই দুটি স্পোর্টসে আর্জেন্টিনাকে সহযোগিতা করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া পাপন বাংলাদেশের ফুটবল উন্নয়নে তাদেরও পাশে চান, ‘তারা আমাদের কাছে ক্রিকেটের সহযোগিতা চেয়েছে। আমি তাদের নিশ্চয়তা দিয়েছি কিউরেটর থেকে শুরু করে যা প্রয়োজন, আমরা দিতে প্রস্তুত। প্রয়োজনে আমাদের ক্রিকেটাররাও সেখানে গিয়ে খেলবে।’

পাপন আরও বলেন, ‘ক্রিকেটের পাশাপাশি তারা কাবাডি নিয়েও আগ্রহ প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশের জাতীয় খেলায় তারা একবার অংশ নিয়েছিল। আমরা কাবাডিতেও তাদের সহায়তা করতে পারি। ফুটবলে তারা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। অনেক ঐতিহ্য তাদের। আমরা তাদের কাছ থেকে কোচ নিতে পারি আবার আমাদের ছেলেমেয়েরা ওখানে গিয়ে প্রশিক্ষণ নিতে পারে। হকিতে আমাদের সম্ভাবনা রয়েছে, আবার তারাও হকিতে বিশ্বমানের। হকি নিয়ে তাদেরও আগ্রহ আছে। আমরা তাদের কী দিতে পারি, আবার তাদের কাছ থেকে আমরা কী নিতে পারি– এ রকম একটা ডিটেইলস একে অন্যকে দেব। এর পর মূলত কাজ শুরু হবে।’

১৮০৬ সাল থেকে ক্রিকেট শুরু করা আর্জেন্টিনা প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিল ১৮৮৬ সালে উরুগুয়ের বিপক্ষে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগ পর্যন্ত উরুগুয়ের বিপক্ষে ২৯টি ম্যাচ খেলে জিতেছিল ২১টিতে। ফুটবলের ডামাডোলে সে দেশের মানুষের ক্রিকেট নিয়ে খুব একটা আগ্রহ নেই। ১৯৭৯ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলা লাতিন আমেরিকার দেশটি সাম্প্রতিক সময়ে টি২০ ম্যাচও খেলেছে। ২০১৯ সালের ৩ অক্টোবর মেক্সিকোর বিপক্ষে প্রথম আন্তর্জাতিক টি২০ খেলেছিল আর্জেন্টিনা। ওই বছর অনুষ্ঠিত সাউথ আমেরিকান ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১২:১৮:৩০ ● ৭৬ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ