জরায়ুমুখ ক্যান্সার রোধে নারীদের টিকা দেওয়া হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Home Page » জাতীয় » জরায়ুমুখ ক্যান্সার রোধে নারীদের টিকা দেওয়া হবে-স্বাস্থ্যমন্ত্রী
সোমবার ● ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩


সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

বঙ্গ-নিউজ: আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে জরায়ুমুখ ক্যান্সার রোধে নারীদের টিকা দেওয়া শুরু করছে সরকার। আজ সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, জরায়ুমুখের ক্যান্সার শনাক্তে সারাদেশে স্ক্রিনিং প্রোগ্রাম চালু আছে। এই রোগ প্রতিরোধে এইচপিভি নামের একটি টিকা আছে। সেপ্টেম্বর থেকে দেশের সব নারীকে এই টিকা কার্যক্রমের আওতায় আনা শুরু করব। আশা মনে করি, এতে জরায়ুমুখ ক্যান্সার অনেক কমে আসবে।

স্তন ক্যান্সারের পর সবচেয়ে বেশি জরায়ুমুখ ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছেন বাংলাদেশে নারীরা। বিশ্বে প্রতি বছর ৫ লাখ ৭০ হাজার নারী জরায়ুমুখ ক্যান্সারে আক্রান্ত হন এবং মারা যান ৩ লাখের বেশি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যে এমন পরিসংখ্যান উঠে এসছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, বাংলাদেশে প্রতি বছর জরায়ুমুখ ক্যান্সারে ৮ হাজার ২৬৮ জন নারী আক্রান্ত হচ্ছেন। আর বছরে মারা যান ৪ হাজার ৯৭১ জন নারী।

এই রোগ প্রতিরোধে ১০ বছর বয়সের পর থেকেই টিকা নেওয়া যায়। তিনটি ডোজ নিতে হয় এই টিকার। প্রথম ডোজের এক মাস পর দ্বিতীয় ডোজ ও তৃতীয় ডোজ নিতে হবে তিন মাস পর।

সংবাদ সম্মেলনে জাহিদ মালেক বলেন, প্রাথমিকভাবে দেশের ১০ থেকে ১৫ বছর বয়সী কিশোরীদের বিনামূল্যের এই টিকা দেওয়া হবে। সেই সঙ্গে বিভিন্ন হাসপাতালে স্তন ক্যান্সার শনাক্তের যন্ত্রও দেওয়া হবে।

দেশে অনেকে ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে এই রোগ শনাক্তের যন্ত্রের অপ্রতুলতা রয়েছে। এই রোগ দ্রুত শনাক্তে অন্তত প্রতি জেলায় মেমোগ্রাফির যন্ত্রপাতি দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে উপজেলা পর্যায়ে দেওয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, অতিরিক্ত সচিব (জনস্বাস্থ্য অনুবিভাগ) সৈয়দ মজিবুল হক, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন অনুবিভাগ) মো. সাইদুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীরসহ অনেকেই।

বাংলাদেশ সময়: ১৯:৫৫:৪২ ● ৩৬০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ