ওয়াগনার প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোঝিনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ ক্রেমলিনের

Home Page » জাতীয় » ওয়াগনার প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোঝিনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ ক্রেমলিনের
শনিবার ● ২৪ জুন ২০২৩


সংগৃহীত ছবি-ওয়াগনার প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোঝিন

বঙ্গ-নিউজ: রুশ সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছে দীর্ঘদিন ধরে তাদের ভাড়া খেটে আসা আধা সামরিক বাহিনী ওয়াগনার গ্রুপ। রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহের ডাক দেওয়ার অভিযোগে ওয়াগনার প্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোঝিনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছে ক্রেমলিন। এতে মূলত গৃহযুদ্ধের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে রাশিয়ায়। খবর আল জাজিরা।

সম্প্রতি ওয়াগনার বাহিনীর ওপর মিসাইল হামলার ঘটনায় ক্ষিপ্ত প্রিগোঝিন ঘোষণা দিয়েছেন, যে কোনো মূল্যে তিনি রুশ সেনাবাহিনীর নেতৃত্বের পতন ঘটাবেন। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে তিনি ইউক্রেন থেকে সীমান্তের লাগোয়াবর্তী রাশিয়ার রোস্তভ অঞ্চলে ঢুকে পড়েছে এবং একটি রাশিয়ান হেলিকপ্টার ধ্বংস করেছেন বলেও দাবি করছেন। এ অবস্থায় সীমান্ত এলাকাজুড়ে রাশিয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে। ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে। পাশাপাশি মস্কোর রাজপথে সামরিক যানের উপস্থিতি বেড়েছে।

এদিকে শনিবার সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত কিছু ভিডিও চিত্রে দেখা গেছে, ওয়াগনারের সৈন্যরা রাশিয়ার শহর রোস্তভ-অন-ডনে প্রবেশ করছে। তারা সশস্ত্র সৈন্যরা এক সরকারি ভবন ঘিরে রেখেছে এবং দুটি ট্যাংক থেকে অস্ত্র তাক করে রাখা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ভবনটি স্থানীয় পুলিশ সদর দপ্তর। তবে এসব ভিডিও সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি।

কয়েক বছর ধরে আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় রুশ বাহিনীর হয়ে প্রতিপক্ষের সঙ্গে লড়ছে ওয়াগনার গ্রুপ। ইউক্রেনের সঙ্গে লড়াইয়েও পুতিন আস্থা রাখেন ইয়েভজেনির সামরিক গোষ্ঠীটির ওপর। তবে কিছুদিন ধরে ওয়াগনার গ্রুপের সঙ্গে রুশ সেনা কর্তৃপক্ষের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। তারা রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও সেনাপ্রধানের বিরুদ্ধেও অভিযোগ তোলে। তবে রুশ কর্তৃপক্ষ তাদের সে অভিযোগ সেভাবে আমলে নেয়নি।

এর কিছুদিন পর ওয়াগনার গ্রুপ অভিযোগ করে, রুশ সেনারা ওয়াগনারের সেনাক্যাম্পের ওপর ভয়াবহ মিসাইল হামলা চালিয়েছে। এতে তার বেশ কিছু সৈনিক মারা গেছে। এরপরই ক্ষেপে যান ওয়াগনারপ্রধান ইয়েভগেনি প্রিগোঝিন। তিনি জানান, ওয়াগনার গোষ্ঠীর কমান্ডারদের কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এই দেশের শয়তান সামরিক নেতৃত্বকে খতম করা হবে।

গতকাল শুক্রবার তিনি এ নিয়ে আবারও মুখ খোলেন। এক অডিওবার্তায় এ বিষয়ে তাকে বলতে শোনা গেছে, আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাব। এর শেষ দেখে ছাড়ব আমরা। যারা আমাদের আটকাতে আসবে, তাদের আমরা খতম করে দেব। তার কথা যে অমূলক নয়, তা বোঝাতে তিনি বলেন, কিছুক্ষণ আগেই রুশ সেনার একটি হেলিকপ্টার সাধারণ মানুষের ওপর গুলি চালাতে শুরু করেছিল। আমরা সেই হেলিকপ্টারটিকে ধ্বংস করে দিয়েছি।

এদিকে মিসাইল হামলার কথা অস্বীকার করে রুশ সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সরাসরি সামরিক অভ্যুত্থানের ঘোষণা দিয়েছেন ইয়েভজেনি। রাশিয়ায় গৃহযুদ্ধ লাগাতে চাইছেন তিনি। ইউক্রেনের ফ্যাসিস্ট বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করতে থাকা রুশ সৈনিকদের পিঠে ছুরিকাঘাত করেছেন তিনি। তাকে গ্রেপ্তার করতে রুশ সেনাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে রুশ সেনা কর্তৃপক্ষ অবিলম্বে প্রিগোঝিনকে সবরকম ‘অবৈধ কার্যক্রম’ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২১:১৮:১২ ● ১২০ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ