নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন দুই পুলিশ কর্মকর্তা

Home Page » জাতীয় » নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলেন দুই পুলিশ কর্মকর্তা
রবিবার ● ২৩ জুলাই ২০২৩


বাংলাদেশ হাইকোর্ট

বঙ্গ-নিউজ: জামিনে থাকা অবস্থায় এক আসামিকে আটকের ঘটনায় আদালতের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন পটুয়াখালীর থানার দুই পুলিশ কর্মকর্তা। তারা হলেন- ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মিজানুর রহমান।

আজ আদালতে হাজির হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে ক্ষমা প্রার্থনা করেন দুই পুলিশ কর্মকর্তা। এ সময় আদালতের বিচারক ছিলেন বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মো. আমিনুল ইসলাম।

এ ঘটনায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর ২১ মে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ব্যাখ্যা জানাতে ওসি মনিরুজ্জামান ও এএসআই মিজানুরকে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দেন।

শুনানিতে আসামিপক্ষের আইনজীবী আলী আহসান মোল্লা বলেছিলেন, পুলিশ ধরে নিয়ে যাওয়ার সময় আসামি আমাকে ফোন দেন। ওই সময় আসামির ফোন থেকে আমি এসআইকে বলেছি, আসামি জামিনে আছেন, কিন্তু তবুও পুলিশ তাকে ধরে নিযে যায়। থানায় নেওয়ার পর ওসিকেও ফোন দিয়েছি, তিনিও ব্যস্ততা দেখিয়ে কথা বলেননি, ফোন রেখে দেন।

আসামিপক্ষের আইনজীবীর উদ্দেশ্যে আদালত বলেন, আপনি ফোন করেছিলেন?

তখন আলী আসামিপক্ষের আইনজীবী বলেন, আসামির ফোন থেকে ওসির সঙ্গে কথা বলেছি। কল রেকর্ড সংগ্রহ করতে বিটিআরসিতে গিয়েছিলাম। কিন্তু তারা বলেছে, ব্যক্তিগতভাবে কল রেকর্ড দেওয়ার সুযোগ নেই, তবে আদালতের আদেশ থাকলে দেওয়া হবে।

আদালত বলেন, আদেশ দিচ্ছি। বিটিআরসি থেকে রেকর্ড কল এনে সোমবারের মধ্যে আদালতে দাখিল করবেন।

দুই পুলিশ কর্মকর্তার আইনজীবী আবু রেজা মো. কাইয়ুম খানের উদ্দেশ্যে আদালত বলেন, আমরা কল রেকর্ড শুনব। শুনানির জন্য আগামীকাল পরবর্তী দিন রাখা হলো।

এ সময় দুই পুলিশ কর্মকর্তার পক্ষে আদালতের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন আইনজীবী আবু রেজা মো. কাইয়ুম খান। তিনি বলেন, যখন আসামিকে থানায় নেওয়া হয়, তখন কোনো কাগজপত্র দাখিল করতে পারেননি। এছাড়া আমাদের কাছে কোনো আদেশও ছিল না। আমরা আদালতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমরা নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

বাংলাদেশ সময়: ২০:৪৮:০৮ ● ১০৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ