দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে অবিলম্বে ৪ কোটি ডিম আমদানির অনুমতি

Home Page » অর্থ ও বানিজ্য » দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে অবিলম্বে ৪ কোটি ডিম আমদানির অনুমতি
সোমবার ● ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩


 আমদানি করা হবে ডিম

বঙ্গ-নিউজ: দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকার চারটি সংস্থাকে অবিলম্বে ৪ কোটি ডিম আমদানির অনুমতি দিয়েছে। প্রতিটি এজেন্সি এক কোটি ডিম আমদানি করবে। রোববার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ অনুমতি দেয়। ডিম আমদানির অনুমতিপ্রাপ্ত কোম্পানিগুলো হচ্ছে- মিম এন্টারপ্রাইজ, প্রাইম এনার্জি ইমপোর্টার্স অ্যান্ড সাপ্লায়ার্স, টাইগার ট্রেডিং এবং অর্নব ট্রেডিং লিমিটেড।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘আমাদের টার্গেট ডিমের দাম কমানো। ফলে আমরা ডিম আমদানির অনুমতি দিয়েছি। ডিমের দাম না কমানো পর্যন্ত আমরা এটা চালিয়ে যাব।’

ডিমের আকাশছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধির পর বেশ কয়েকটি কোম্পানি ডিম আমদানির অনুমতি চেয়েছিল। ডিমের দাম না কমলে অনুমতি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

এর আগে বৃহস্পতিবার তিনটি পণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। পণ্যগুলো হলো- ডিম, আলু ও পেঁয়াজ। প্রতিটি ডিমের দাম ১২ টাকা নির্ধারণ করে দেওয়া হলেও এই দামে ডিম বিক্রি হচ্ছে না।

খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, পাইকারি বাজার থেকে বেশি দামে ডিম কেনার কারণে তারা সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করতে পারছেন না।

ডিম আমদানিতে চারটি শর্ত দেওয়া হয়েছে। প্রথমে ইনফ্লুয়েঞ্জা বা বার্ড ফ্লু মুক্ত দেশ থেকে ডিম আমদানি করতে হয়। দ্বিতীয়ত, রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ডিমের প্রতিটি চালানের বিপরীতে এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা বা বার্ড ফ্লু থেকে মুক্ত সংক্রান্ত সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।

এছাড়া নিষিদ্ধ পণ্য আমদানি করা যাবে না এবং সরকারের অন্যান্য বিধিনিষেধও মানতে হবে। আমদানিকারকদের পাঠানো চিঠিতে এমন দুটি শর্তের কথা বলা হয়েছে।

বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ডিম আমদানি করতে হবে। যেহেতু এলসি খোলার পর ডিম আমদানি করতে হয়, তাতে কিছুটা সময় লাগবে বলেও জানান তিনি। প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, দেশে প্রতিদিন চার কোটি ডিমের চাহিদা রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯:৪১:১৫ ● ১৯৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ