মধ্যনগর ইউনিয়নে প্রচারণায় ব্যস্ত দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা

Home Page » সংবাদ শিরোনাম » মধ্যনগর ইউনিয়নে প্রচারণায় ব্যস্ত দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা
সোমবার, ১ মার্চ ২০২১



মধ্যনগর ইউনিয়নে প্রচারণায় ব্যস্ত দলীয় মনোনয়ন  প্রত্যাশীরাআল-আমিন সালমান, বঙ্গ-নিউজ::সুনামগঞ্জ জেলার  ভাটির রাজধানী মধ্যনগর। কালের পরিক্রমায় আনন্দগঞ্জ থেকে মধ্যনগর নামটি ধারন করে।মধ্যনগর সদর ইউনিয়নের মোট আয়তন ৪৪ বর্গকিলোমিটার। মোট জনসংখ্যা ৩০ হাজার জন।মৌজার সংখ্যা ২০টি।   ৩৩ টি গ্রাম নিয়ে মধ্যনগর ইউনিয়ন পরিষদ গঠিত।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জমে ওঠেছে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা।আগামী মে মাসে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা এই অঞ্চলের   ইউপি নির্বাচন।তাই সম্ভাব্য চেয়ারম্যান  পদপ্রার্থীরা যে যার শক্ত অবস্থান জানান দিচ্ছেন। কেউ শোডাউন করে কেউবা ব্যানার ফেস্টুন দিয়ে ইউনিয়ন বাসীর  দোয়া ও সমর্থন কামনা করছেন। অনেকে দলীয় মনোনয়ন পেতে হাই কমান্ডে দৌড়ঝাঁপ করছেন।

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মাঠে আছেন ইউপি চেয়ারম্যান ও মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি প্রবীর বিজয় তালুকদার,বিগত নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পরিতোষ সরকার,মধ্যনগর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম শাহাবুদ্দিন ফারুকীর  ছেলে  ও মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম ফারুবী,মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মোবারক হোসেন তালুকদার, মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের সদস্য ও সুনামগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি সঞ্জীব তালুকদার টিটু,সাবেক মধ্যনগর থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক প্রদীপ চন্দ্র সরকার

।এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল -বিএনপির একক মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মাঠে আছেন  সাবেক মধ্যনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মরহুম  আব্দুল লতিফ তালুকদারের  ছেলে  মধ্যনগর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান  আব্দুল কাইয়ূম মজনু।ইউপি চেয়ারম্যান ও মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি প্রবীর বিজয় তালুকদার জানান,বিগত নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন দিয়েছিলেন এবং মধ্যনগর ইউনিয়নের মানুষ আমাকে ভালোবেসে বিপুল ভোটে  চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছিলেন। নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই সরকারের যাবতীয় উন্নয়ন কর্মকাণ্ড প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে দিচ্ছি।আগামী নির্বাচনে তৃণমূলের প্রত্যাশা অনুযায়ী আমি মনোনয়ন প্রত্যাশী।যদি দল আমাকে মনোনয়ন দেয় আমি দলের সাংগঠনিক গতিশীলতা সমুন্নত রেখে তৃণমূল জনপ্রত্যাশা মোতাবেক প্রকৃত মুজিব আদর্শিক কর্মী হিসেবে কাজ করে যেতে চাই।এক্ষেত্রে জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিশন, মিশন তথা এমডিজি অর্জনে গ্রামীণ অবকাঠামোগত উন্নয়নে মুখ্যত ভূমিকা পালন করব বলে আশা রাখি।আওয়ামীলীগের  মনোনয়ন প্রত্যাশী পরিতোষ সরকার বলেন,আমি যদি দলীয় মনোনয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই তাহলে সরকারী বরাদ্দের উন্নয়ন খাতে শতভাগ বাস্তবায়ন,শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবার পাশাপাশি  শেখ হাসিনার উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করব।

মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক  মোবারক হোসেন তালুকদার বলেন, আমি যদি দলীয় মনোনয়ন পেয়ে চেয়ারম্যান হতে পারি তাহলে একজন  কৃষকের সন্তান হিসেবে    কৃষকের ফসল ঘরে  তুলার  জন্য হাওরের মাঝখান দিয়ে ছোটখাটো রাস্তা নির্মাণ ও অবকাঠামোগত উন্নয়নে কাজ করব।এবং  মধ্যনগর ইউনিয়ন কে মাদক,সন্ত্রাস,  দূর্নীতিমুক্ত ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করে  মামলার প্রকোপ কমিয়ে আনাই হলো আমার মূল লক্ষ্য।সঞ্জীব  তালুকদার টিটু বলেন,আমি দুই যুগের বেশী সময় ধরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। আশাকরি জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দেবেন।আমি যদি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হই তাহলে এই ইউনিয়নে সুশাসন প্রতিষ্ঠাই হলো আমার মূল উদ্দেশ্য। সেই সাথে সরকারের শতভাগ উন্নয়ন বাস্তবায়ন করব।

সাবেক মধ্যনগর ইউনিয়ন পরিষদ  চেয়ারম্যান ও মধ্যনগর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাইয়ূম মজনু জানান,জনগণ যদি ভোট দেওয়ার সুজোক পায় তাহলে আমি  চেয়ারম্যান নির্বাচিত হব ইনশাআল্লাহ। সচেতন নাগরিকদের সাথে কথা বললে মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক  আলাউদ্দিন বলেন, সংগঠনের স্বার্থ বিবেচনায় নিয়ে যারা কল্যাণকর রাষ্ট্র গঠণে ভূমিকা রাখবে এবং যারা অপেক্ষাকৃত সৎ, স্বজ্জন, সুশিক্ষিত ও সবধরনের অনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে মুক্ত থাকবে। দল ওই ধরনের প্রার্থীকে মনোনয়ন দেবে এই প্রত্যাশা।এই বিষয়ে মধ্যনগর ইউনিয়নের নিয়ামতপুর গ্রামের প্রবীণ মুরুব্বি ও মধ্যনগর থানা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক উপানন্দ সরকার বলেন,বঙ্গবন্ধুর তনয়া ও আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নৌকার দুঃসময়ের পরীক্ষিত কাণ্ডারী কে নৌকার নমিনেশন দেওয়া হোক।বিগত দিনে নৌকার বিরুদ্ধে যারা বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেছে তাদের কে যাতে নৌকার প্রতিক না দেওয়া হয়। রাজনীতি হচ্ছে মানুষের কল্যাণের জন্য। ইজারাদারের জন্য রাজনীতি না, ব্যবসায়ীর জন্য রাজনীতি না।

বাংলাদেশ সময়: ৯:৪৩:৩৮   ৮৫৮ বার পঠিত   #  #  #  #




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

সংবাদ শিরোনাম’র আরও খবর


৫ লাখ মানুষের মৃত্যু ব্রাজিল এ !!!
১২ বস্তা টাকা কিশোরগঞ্জের পাগলা মসজিদের দানবাক্সে!!
হিন্দু মহাজোটের দাবি, ‘মডেল মন্দির’ নির্মাণ
ভারতে মৃত্যু একদিনে ১৬৪৭,নতুন আক্রান্ত ৬০৭৫৩
আবু ত্ব-হা মোহাম্মদ আদনান এখন পুলিশ হেফাজতে
পাকিস্তানে ‘ধর্মান্তরিত করে’ বিয়ে, উত্তাল দেশ
কয়েকটা ধনীদেশের বিশ্ব নিয়ন্ত্রণের দিন শেষ !! বলছে চীন
ব্যাংক লেনদেন বৃহস্পতিবার থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত
হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় জবাবদিহিতা নিশ্চিতকল্পে যাত্রীবাহী পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের সাথে মতবিনিময় সভা
আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত চলমান থাকবে বিধিনিষেধ

আর্কাইভ

16. HOMEPAGE - Archive Bottom Advertisement