আমাদেরকে উদ্ধার করেন, সারাজীবন আপনার দাস হয়ে থাকব

Home Page » জাতীয় » আমাদেরকে উদ্ধার করেন, সারাজীবন আপনার দাস হয়ে থাকব
বুধবার ● ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩


তুরস্কে চাপা পড়া দুই শিশু, উদ্ধারের অনুরোধ করছে

বঙ্গ-নিউজ::গতকাল টুইটারে  দুটি শিশুর ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। যেখানে দেখা যায়, চাপা পড়া দেয়ালের মাঝখানে আটকে রয়েছে দুটি শিশু। তারা দুই ভাইবোন। ছোট ভাইকে নিয়ে আটকা পড়েছে ছোট মেয়েটি। আটকে থাকার দীর্ঘ সময়জুড়ে সে তার ভাইয়ের মাথায় হাত দিয়ে রেখেছে, যেন সে মাথায় কোনো ব্যথা না পায়। এক উদ্ধারকারীর আওয়াজ পেয়ে মেয়েটি বলে, স্যার, আপনি যদি আমাকে এবং আমার ভাইকে উদ্ধার করেন, আমরা সারাজীবন আপনার দাস হয়ে থাকব।
তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্পে বিপর্যয়ের চিত্র ক্রমেই সামনে আসছে। কেউ তার প্রিয়জনকে হারিয়েছেন, আবার কেউবা তার প্রিয়জনের খোঁজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। কোথাও আবার মৃত সন্তানের হাত ধরে বসে আছে বাবা। মুক্তির বিনিময়ে সারা জীবন গোলাম হয়ে থাকার প্রতিশ্রতিও দিচ্ছে ছোট্ট মেয়ে। সব মিলিয়ে তুরস্কের চিত্র এখন মর্মান্তিক ও দুঃখজনক। খবর ট্রেন্ডসম্যাপডটকম।

তুরস্কেরে দ্বংসপ্রাপ্ত একচট এলাকা

ভূমিকম্পে তুরস্কের সীমান্তবর্তী বিরাট এলাকা ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। হাজার হাজার ভবনের ধ্বংসাবশেষে চাপা পড়েছে শত শত মানুষ। তাদের বের করে আনতে অভিযান চলছে। প্রিয়জনের অপেক্ষায় থাকা মানুষগুলো উদ্ধারকর্মীদের দিকে তাকিয়ে রয়েছে। কেউ স্বজনকে জীবিত খুঁজে পেয়েছেন, আবার অনেকের প্রাপ্তি মৃতদেহ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমের কল্যাণে এসব ছবি ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বজুড়ে।

উদ্ধারকারীরা এ রকম আরও অসংখ্য মুহূর্তের মুখোমুখি হচ্ছেন। কোথাও নবজাতক সন্তানকে উদ্ধার করা হয়েছে, অথচ মায়ের মৃত্যু হয়েছে। কোথাও পরিবারের সবার মৃতদেহ উদ্ধারের পর, জীবিত পাওয়া গেছে দুই-তিন বছরের ছোট শিশুকে। এসব দেখে চোখের পানি ধরে রাখতে পারছেন না স্বেচ্ছাসেবী ও উদ্ধারকর্মীরা।

গত সোমবারে আঘাত হানা কয়েক দফার ভূমিকম্পে তুরস্ক ও সিরিয়ায় মৃত্যুর সংখ্যা সাত হাজার ছাড়িয়েছে। প্রাকৃতিক এই দুর্যোগে ভেঙ্গেছে কয়েক হাজার বাড়িঘর, স্থাপনা। আহত ও নিখোঁজের সংখ্যা কারো জানা নেই।

বাংলাদেশ সময়: ১৮:৪০:৩৯ ● ৩০৯ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ