এবার ইরানের শীর্ষ দাবাড়ু নির্বাসনে

Home Page » জাতীয় » এবার ইরানের শীর্ষ দাবাড়ু নির্বাসনে
মঙ্গলবার ● ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩


ফাইল ছবি- সারা খাদেম

বঙ্গ-নিউজ: ২৫ বছর বয়সী সারা খাদেম ইরানের প্রতিবাদ আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে একটি আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে মাথায় স্কার্ফ না লাগিয়েই খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। বিশ্বের অন্যতম প্রতিশ্রুতিশীল দাবা খেলোয়াড় তখন ভেবে নিয়ে ছিলেন, তার সাথে সবচেয়ে খারাপ কিছু ঘটতে চলেছে। খবর বিবিসির।

সারা আগেই বুঝতে পেরেছিলেন, তার এই প্রতিকী প্রতিবাদের জন্য তিনি আর ইরানে ফিরে আসতে পারবেন না, সেখানে তার জন্য গ্রেপ্তারের কাগজপত্র অপেক্ষা করছে। তিনি এখন তার স্বামী এবং এক বছরের ছেলের সাথে দক্ষিণ স্পেনে নির্বাসিত জীবনযাপন করছেন।

বিবিসির সাথে সাক্ষাতে তিনি এবং তার পরিবার বিবিসিকে তার সুনির্দিষ্ট অবস্থান প্রকাশ না করতে বলেছিলেন; তাদের উদ্বেগ হল ইরান থেকে হাজার হাজার মাইল দূরেও এর প্রতিক্রিয়া হতে পারে।

ইরানের নারীদের জনসমক্ষে মাথার স্কার্ফ পরতে হয়, এমনকি বিদেশে থাকলেও। কিন্তু গত বছর সেপ্টেম্বরে পুলিশি হেফাজতে ২২ বছর বয়সী মাশা আমিনির মৃত্যুর পর, দেশের অভ্যন্তরে বিক্ষোভের নেতৃত্বদানকারী নারী ও মেয়েদের অনেকে স্কার্ফ ত্যাগ করেছেন।

তাদের মধ্যে একজন পর্বতারোহী এলনাজ রেকাবি। এসব ঘটনার পর তিনি ইরানে ফিরে আসার পর তাকেও পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়েছে। তবে তার সবশেস অবস্থা কী তা স্পষ্ট নয়।

সারা খাদেম বলেন, গত বছরের ডিসেম্বরে কাজাখস্তানে স্কার্ফ ছাড়া টুর্নামেন্টে খেলার সিদ্ধান্তটি খুবই সামান্য ছিল। প্রতিযোগীরা শুধুমাত্র ক্যামেরার সামনে স্কার্ফ পরতেন।

তিনি মনে করেন, এটি ভণ্ডামি। তিনি বলেন, ইরানের রাস্তায় নারী ও মেয়েরা যে অসীম ত্যাগ স্বীকার করছে, কেউ কেউ যে ধরনের জীবনের ঝুঁকি নিয়েছে, সে তুলনায় তিনি অনেক কমই করতে পেরেছিলেন বলেও জানান।

বাংলাদেশ সময়: ২১:০৭:৪৩ ● ৩২৩ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ