এলটন জনের ‘আবেগঘন’ ফেয়ারওয়েল কনসার্ট গ্লাসটোনবারি উৎসবে

Home Page » বিনোদন » এলটন জনের ‘আবেগঘন’ ফেয়ারওয়েল কনসার্ট গ্লাসটোনবারি উৎসবে
মঙ্গলবার ● ২৭ জুন ২০২৩


এলটন জনের ‘আবেগঘন’ ফেয়ারওয়েল কনসার্ট গ্লাসটোনবারি উৎসবে

বঙ্গনিউজঃ  ব্রিটেনের বিখ্যাত গ্লাসটোনবারি উৎসব এলটন জনের কনসার্টের মাধ্যমে শেষ হল রবিবার। এটাই হয়ত যুক্তরাজ্যে এলটন জনের শেষ অনুষ্ঠান।

উপস্থিত জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন,”আমি কখনও ভাবিনি যে, গ্লাসটোনবারিতে আমি গান গাইব। এটা আমার কাছে খুবই বিশেষ ও আবেগঘন রাত। ইংল্যান্ডে, গ্রেট ব্রিটেনে এটাই হয়ত আমার শেষ অনুষ্ঠান। তাই, আমি বরং ভাল করে গান গাই, আপনাদের আনন্দ দিয়ে যাই।”

৭৬ বছর বয়সী এই পপস্টার এক আন্তর্জাতিক বিদায়ী সফর দিয়ে তাঁর ঝলমলে কর্মজীবনে ইতি টানতে চলেছেন। মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রে তিনি শেষবারের মতো কনসার্ট করেছেন। ৮ জুলাই স্টকহোমে তাঁর সর্বশেষ অনুষ্ঠান।

ব্রিটেনের সবচেয়ে সুপরিচিত সঙ্গীত উৎসব গ্লাসটোনবারি পাঁচ দশক ধরে দক্ষিণ-পশ্চিম ইংল্যান্ডের এক খামারে আয়োজিত হয়ে চলেছে।

রবিবার রাতে মূল পিরামিড স্টেজে জনের ওঠার আগে ভক্তদের মধ্যে প্রত্যাশা ছিল তুমুল।

২৬ বছর বয়সী পিএইচডি ছাত্র গাইলস ব্রিসকো বলেন,”এলটন একজন কিংবদন্তী।” তাঁর পরনে ছিল বেসবল পোশাক। এমন পোশাক ১৯৭৫ সালে লস অ্যাঞ্জেলেসে ডজার্স স্টেডিয়ামে বিখ্যাত কনসার্টের সময় জন পরেছিলেন। ব্রিসকো আরও বলেন,”আসল কথা হল, এত বড় মঞ্চে তিনি গান গাইতে চলেছেন তাঁর কেরিয়ারের এমন এক ঐতিহাসিক মুহূর্তে। এটা অনেক বড় ঘটনা।”

জন হতাশ করেননি। ‘পিনবল উইজার্ড’ দিয়ে তিনি শো শুরু করেন। এরপর তাঁর কয়েকটি সেরা সেরা হিট গান যেমন ‘ক্যান্ডেল ইন দ্য উইন্ড’, ‘ক্রোকোডাইল রক’ ও ‘আই অ্যাম স্টিল স্ট্যান্ডিং’ ইত্যাদি গেয়ে সবাইকে মাতিয়ে দেন।

‘ডোন্ট লেট দ্য সান গো ডাউন অন মি’ গানটি জন তাঁর ‘বন্ধু’ ও ‘প্রেরণা’ জর্জ মাইকেলকে উৎসর্গ করেন। ২০১৬ সালের ক্রিস্টমাসে প্রয়াত হন জর্জ। জীবিত থাকলে এই রবিবার তাঁর বয়স ৬০ হত।

কনসার্টের আগে জনের স্বামী ডেভিড ফার্নিশ স্কাই নিউজকে বলেন, পরের মাসে বিদায়ী সফর শেষ হওয়ার পরও জন গান তৈরি করা বন্ধ করবেন না। এই বছরের শেষের দিকে তিনি নতুন এক স্টুডিও অ্যালবাম নিয়ে কাজ শুরু করবেন।

জন ঘোষণা করেন যে, তিনি একটু বিরতি নেবেন। স্বাস্থ্যগত কারণে তিনি আগে কিছু অনুষ্ঠান বাতিল করেছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২:২৬:১৬ ● ১৫২ বার পঠিত




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আর্কাইভ