দুর্নীতির শেষ নেই কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেটিতে

Home Page » আজকের সকল পত্রিকা » দুর্নীতির শেষ নেই কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেটিতে
শুক্রবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২১



 

 ---

ফজলুল হক, বঙ্গ নিউজঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়াও ওই সরকারী হাসতালে রয়েছে রোগীদের চেয়ে দালালাদের কদর বেশি। ওই হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতির ছত্র-ছায়ায় এসব অপকর্ম হচ্ছে বলে জানা গেছে। এ কারণে স্বাস্থ্য সেবা ভেঙ্গে পড়ায় চরম দুর্ভোগে আছেন রোগী ও তাদের স্বজনরা।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভুক্তভোগী রোগী ও তাদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ১৯৬৪ সালে ৩১ শয্যা বিশিষ্ট কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হয়েছে। ২০১২ সালের ১১ ডিসেম্বর এ হাসপাতালটি ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নতি করা হয়। হাসপাতালের শয্যার উন্নতি হলেও বাড়তি কোনো জনবল নিয়োগ দেওয়া হয়নি। ফলে ৩১ শয্যার জনবল দিয়েই চলছে এ হাসপাতালটি। কিন্তু ৩১ শয্যা হাসপাতালে ২০ চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও চিকিৎসক আছেন ৮ জন। এছাড়া জনবল ও যন্ত্রাংশ সংকটে খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আল-বেলাল ও আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতি নানা অনিয়মে জড়িয়ে পড়েন। ফলে ফায়দা লুটছেন স্থানীয় ক্লিনিক মালিকরা। এতে চরম ভোগান্তিতে উপজেলাবাসী। গত ২৫ অক্টোবর কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. প্রবীর কুমার সরকার ও আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতির বদলি হয়। কিন্তু আরএমও ডা. নাজমুন নাহার ওই বদলি বাতিল করে ফের এই হাসপাতালে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে রোগী ভর্তি বানিজ্যসহ নানা অনিয়ম করে আসছেন। তার ছত্র-ছায়ায় সুপারভাইজার নাসরিন নানা অপকর্ম করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতি হাসপাতালের আয়া, নাইট গার্ড, আনসার, বাবুর্চি, চালকসহ বিভিন্ন লোকের নামে ভর্তি দেখান। শুধু ভর্তি রেজিষ্টারে নাম ভর্তি দেখানো হলেও প্রকৃত পক্ষে তারা কেউ ভর্তি হননি। ভুয়া ভর্তি দেখিয়ে প্রতি মাসে হাজার হাজার টাকা আত্বসাৎ করছেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার নাজমুন নাহার ইতি। তার রেজিষ্টার খাতায় রোগীর নাম থাকলেও বাস্তবে কোন মিল নেই। এদের মধ্যে গোয়ালবাথান এলাকার মুক্তা আক্তারকে গত ১২ ডিসেম্বর ভর্তি দেখানো হয়। যার রেজি নং-২৯৪২। পরের দিন ১৩ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখিয়ে একই দিন পুনরায় তাকে ভর্তি দেখানো হয়েছে। যার রেজি নং-২৯৯৪। এরপর ২৬ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখিয়ে একই দিন তাকে আবার ভর্তি দেখানো হয়। এছাড়াও গত ১২ ডিসেম্বর মুক্তার মা জাহানারা বেগমকে ভর্তি দেখানো হয়। যার রেজি নং-২৯৮৩। গত ১৩ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখিয়ে একই দিন আবারও তাকে ভর্তি দেখানো হয়েছে। যার রেজি নং ২৯৯৬ এবং ২৬ ডিসেম্বর তাকে ছুটি দেখানো হয়। গত ১২ ডিসেম্বর জানেরচালা এলাকার সোলাইমানের মেয়ে জান্নাতকে ভর্তি দেখানো হয়। যার রেজি নং ২৯৮৫। পরে ১৩ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখিয়ে একই দিন আবারও তাকে হাসপাতালে ভর্তি দেখানো হয়। এরপর ২৬ ডিসেম্বর তার তাকে ছুটি দেখানো হয়। যার রেজি নং-২৯৯৩। এরপর জান্নাতের মা মর্জিনা বেগমকে ১২ ডিসেম্বর হাসপাতালে ভর্তি দেখানো হয়। যার রেজি নং ২৯৮৪। পরের দিন ১৩ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখিয়ে একই দিন পুনরায় তাকে ভর্তি দেখানো হয়। এরপর একই দিন আবার তাকে ভর্তি দেখিয়ে ২৬ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখানো হয়। যার রেজি নং ২৯৯৫। নলোয়া এলাকার শওকত হোসেন। তিনি ওই হাসপাতালে আনসার সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। গত ৮ ডিসেম্বর তাকে হাসপাতালে ভর্তি দেখানো হয়েছে। যার রেজি নং ২৯৫৪। পরে ১৭ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখিয়ে পরের দিন ১৮ ডিসেম্বর তাকে আবার ভর্তি দেখানো হয়। এরপর ২৬ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখানো হয়। যার রেজি নং-৩০৩৫। এছাড়া ১৬ ডিসেম্বর ওই হাসপাতালের আয়া আনোয়ারাকে ভাল খাবারের জন্য ভর্তি হন। একই দিন তার ছুটি হয়। যার রেজি নং-৩০১৪। একই দিন ভাল খাবারের জন্য হাসপাতালের বাবুর্চি আঙ্গুরী ও ঝাড়–দার রহিমা বেগমকে ভর্তি ও ছুটি দেখানো হয়। যার রেজি নং ৩০১৫। ৯ ডিসেম্বর একাদশীকে ভর্তি দেখানো হয়। যার রেজি নং ২৯৬৮ এবং ১৯ ডিসেম্বর তার ছুটি দেখানো হয়। ভর্তি দেখানো মুক্তা আক্তার বলেন, আমি কখনো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি হয়নি। ভর্তি খাতায় আমার নাম রেজিষ্ট্রেশন কিভাবে হলো আমার জানা নেই। এছাড়াও হাসপাতালে আসা রোগীদের চেয়ে দালালদের বেশি কদর দেখানো হয় বলেও রোগী ও তাদের স্বজনদের অভিযোগ।

অপরদিকে আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতির ষ্ট্যান্ড রিলিজ হওয়ার পরও দুর্নীতির দায়ে ক্ষমতার দাপটে পুনরায় এ হাসপাতালে চলে আসে। সরকারী কোয়াটারে থাকার কথা থাকলেও তিনি মির্জাপুর থেকে এসে ডিউটি করেন। তার সরকারী কোয়াটার অন্যের কাছে ভাড়া দিচ্ছেন। হাসপাতালে দ্বিতীয় শ্রেনীর কোয়াটারে ফিল্ড ষ্টাফদের থাকার ব্যবস্থা করে। দ্বিতীয় শ্রেনীর নার্সরা চতুর্থ শ্রেনীর কোয়াটারে থাকে। হাসপাতালের খাবারসহ নানা সামগ্রী ক্রয়ের ব্যাপারে আগে জেলা সিভিল সার্জন নিয়ন্ত্রন করতো। বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আল-বেলাল ও আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতি খাবার ও মালামাল ক্রয়ের ঠিকাদার নিয়োগ দেন। আর্থিক সুবিধা নিয়ে নিম্ন রেডের লোককে না দিয়ে উচ্চ ধরের লোককে খাবারের ব্যবস্থা করে দেন। এছাড়াও নাসিং সুপারভাইজার নাজনিন ছুটি ছাড়া বাড়ি চলে গেলেও ৭ দিন পর হাসপাতালে এসে তিনি খাতায় সই করেন। ওই হাসপাতালের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কর্মী হৈমন্তী বাসফুর (৫২) অসুস্থ্য হয়ে ছুটির জন্য ঘুরছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্মকর্তার দপ্তরে। ঢাকা হাসপাতালে পরিক্ষা-নিরীক্ষায় তার হার্ড ও কিডনিতে সমস্যা দেখা দিলেও অজ্ঞাত কারণে তাকে ছুটি না দিয়ে শুধু ঘুরাচ্ছেন। তিনি হাসপাতালের সামনে সাংবাদিকদের দেখে এগিয়ে এসে কান্না কন্ঠে বলেন, অসুস্থতা নিয়েও আমার কাজ করতে হয়। আমি আর পারছি না আমাকে একটু আপনারা সাহায্যে করেন। আমার ছুটির প্রয়োজন। কিন্তু উনারা শুধু ঘুরাচ্ছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. নাজমুন নাহার ইতি বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সঠিক নয়। তা ছাড়া উধ্বর্তন কতৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া আমি কোন বক্তব্য দিতে পারবো না।

 কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আল বেলাল জানান, আমি কোন বক্তব্য দিতে পারবো না। বক্তব্য দিতে হলে আমার উর্ধ্বতন কর্মকর্তার অনুমতি লাগবে।

কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী হাফিজুল আমিন জানান, হাসপাতালের অনিয়মের বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে সুনিদিষ্ঠ অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭:৪৩:০৭   ১৫০ বার পঠিত  




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

আজকের সকল পত্রিকা’র আরও খবর


পাটুরিয়ায় মানুষের ঢল
বাংলাদেশ জরুরি ওষুধ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রদান করতে চায় ভারতকে
কৃষকের ধান কেটে দিলেন যুবলীগ নেতা
ভারতে শ্মশানের সামনে লাশের দীর্ঘ সারি -গণচিতায় জ্বলছে শ্মশান
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন
মৃত্যূবরণ করলেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ
প্রতিভাবান ও নেতৃত্ব দিতে সক্ষম এমন আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্ব নির্বাচিত হলেন মাশরাফি
সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষক ব্যাচ-১৮ কার্যনির্বাহি কমিটি গঠণ
চলে গেলেন বরেন্য অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান
কালিয়াকৈরে অভিভাবকদের সাথে মতবিনিময় সভা

15. HOMEPAGE - Tab Bottom Advertisement

আর্কাইভ

16. HOMEPAGE - Archive Bottom Advertisement